জানেন কি পৃথিবীর একটি মুহুর্তও আযান ব্যাতীত অতিক্রম হয় না!

প্রতিবেদকঃ আযান হচ্ছে মুসলিমদের প্রতিদিন নির্দিষ্ট পাঁচ সময়ে (নামাজ আদায় করার জন্য) প্রার্থনা করবার জন্য আহ্বানের মাধ্যম, প্রতিদিন নির্দিষ্ট পাঁচ (ভোর, দুপুর, বিকেল, সন্ধ্যা, রাত)

সময়ে প্রার্থনা করবার জন্য মুয়াজ্জিন তার সুললিত কন্ঠে আযানের (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি উচ্চারণের মাধ্যমে আহ্বান করে থাকেন।

আর এই আযানের (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি শুনেই মুসলিমরা তাদের (নামাজ আদায় করার জন্য)

প্রার্থনা করবার জন্য নিকটস্থ মসজিদে ছুটে যায় কিংবা যেখানেই পারে পবিত্রতা অর্জনের মাধ্যমে প্রার্থনা (নামাজ) আদায় করে।

★★ আযান সম্পর্কে একটি ভৌগলিক গবেষণার বর্ণণা: এই পৃথিবীতে সর্ব প্রথম ফজরের আযান (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি শুরু হয় বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়া থেকে এর পর ক্রমান্বয়ে অন্যান্য দেশে আযানের (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি উচ্চারিত হতে থাকে। মজার বিষয় হচ্ছে পৃথিবীতে এক সেকেন্ডের জন্যও আযানের (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি উচ্চারণ বন্ধ হয়না বরং ঘড়ির কাঁটার সাথে তাল মিলিয়ে আযানের (আল্লাহু আকবর, আল্লাহু আকবর) ধ্বনি উচ্চারিত হতে থাকে পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত।

এবার জানুন কিভাবে অব্যাহতভাবে আযানের ধ্বনি উচ্চারিত হচ্ছে পৃথিবীব্যাপী-

★ ফজরের আযান শুরু হয় ইন্দোনেশিয়া থেকে
★ এরপরে আসে সুমাত্রায়
★ সুমাত্রা থেকে -মালয়েশিয়া
★ এরপরে মালয়েশিয়া -বাংলাদেশ
★ বাংলাদেশ- শ্রীলঙ্কা
★ শ্রীলঙ্কা- ভারত
★ ভারত- পাকিস্তান
★ পাকিস্তান-আফগানিস্তান
★ আফগানিস্তান- ওমান
★ ওমান- সৌদি আরব
★ সৌদি আরব- কুয়েত
★ কুয়েত- সংযুক্ত আরব আমিরাত
★ সংযুক্ত আরব আমিরাত-ইয়েমেন
★ ইয়েমেন- ইরাক
★ ইরাক- ইরান
★ ইরান- তুরস্ক
★ তুরস্ক- তারাবিলস
★ তারাবিলস- লিবিয়া
★ এভাবে শুরু হয়ে আমেরিকা এবং আরও অন্যান্য বাকি সবদেশে আযানের ধ্বনির উচ্চারণ অব্যাহতভাবে চলতে থাকে। এভাবে আযান ধ্বনি ৯ ঘন্টা একাধারে উচ্চারিত হতে থাকে পৃথিবীব্যাপী।

★ এরপরে যখন জোহরের ওয়াক্ত হয় আবার ইনদোনেশিয়ায় ফিরে আসে।

এই ক্লকওয়াইজ পদ্ধতিতেই ৫ ওয়াক্তে সারা পৃথিবীতে আযান ঘুরতে থাকে। একটু খেয়াল করলেই দেখবেন আমাদের দেশের এক জেলার সাথে অপর জেলার ৩-৪-৫ মিনিট করে সময়ের ব্যাবধান রয়েছে, ঠিক একইভাবে সারা পৃথিবীতে এক দেশ থেকে আরেক দেশ, এক শহর থেকে আরেক শহরের সাথেও ৩-৪-৫ মিনিট করে সময়ের ব্যাবধান রয়েছে, মূলত এই সময়ের ব্যবধানের কারণেই প্রতি সেকেন্ডে আযানের ধ্বনি উচ্চারণ অব্যাহতভাবে চলছে এবং চলবে।

আলহামদুলিল্লাহ এই পর্যালোচনা থেকে প্রমাণিত হয় যে এই পৃথিবীর একটি সেকেন্ড একটি মুহুর্তও আযান ব্যাতীত অতিক্রম হয় না। অর্থাৎ প্রতি মুহুর্তেই পৃথিবীর কোথাও না কোথাও আযানের ধ্বনী চলছেই। আল্লাহু আকবার!!

“সূর্যের আলো চামচিকার সহ্য হয় না, তাই বলে তো সূর্য উঠা বন্ধ হয়ে যাবে না। “ সুতরাং অনেকেই অনেক রকমের কথা বলবে- কেউ বলবে আমি মুসলিম নই তাহলে কেনো আযানের ধ্বনি শুনে আমার ঘুম ভাংবে ? আবার কেউ বলবে আমি মুসলিম নই তারপরও আযানের সুমধুর ধ্বনি আমার ভীষণ ভালো লাগে। এমন অমুসলিম অনেকেই আছেন যারা শুধুমাত্র আযানের সুমধুর ধ্বনি শুনেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: