অপরিকল্পিত নগরায়ন নাগরিক ভোগান্তির অন্যতম একটি কারণ: মেয়র নাছির

প্রতিবেদক: বিশ্ব ব্যাংকের অর্থ সহায়তায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন-মিউনিসিপ্যাল গভর্নেন্স এন্ড সার্ভিসেস প্রজেক্ট যৌথ ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত “ক্যাপিটাল ইনভেন্টমেন্ট প্ল্যান প্রিপারেশন”শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, অপরিকল্পিত নগরায়ন নাগরিক ভোগান্তির অন্যতম একটি কারণ।

১৯৯৫ সালের মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়িত না হওয়ায় জলাবদ্ধতাসহ নানামুখী সমস্যায় এই নগর জর্জরিত। আমরা অনেক সময় নষ্ট করে ফেলেছি।পরিকল্পিত,বাস্তবধর্মী একটি মাষ্টারপ্ল্যান প্রণয়ন করা আজ সময়ের দাবী হয়ে পড়েছে।বর্তমানে বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতায় ড্রেনেজ এবং স্যুয়ারেজ মাষ্টার প্লান প্রণয়নের প্রচেষ্টা চলছে।

জলাবদ্ধতা সমস্যাসহ নানামুখী সমস্যা প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, সমন্বয় মুখে বলা সহজ, কিন্তু করা অনেক কঠিন।বর্তমানে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, ওয়াসা,সিডিএ,কর্ণফূলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন,টিএন্ডটি আলাদা আলাদা মন্ত্রণালয়ের অধীনে নগর উন্নয়নে স্ব স্ব প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।সমন্বয় করার ব্যাপারে আমাদের সকলের প্রচেষ্টা থাকলেও বাস্তবে তা সম্ভব হচ্ছে না।এতে করে যানজট,পরিবেশ বিঘ্নতা,জলাবদ্ধতাসহ উদ্ভূত সাম্প্রতিক সমস্যায় নাগরিক ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।

সিটি মেয়র বিএমডিএফ’র অগ্রাধিকার তালিকায় নগরভবন নির্মাণ প্রকল্পকে গ্রহণ করার প্রস্তাব পেশ করেন। চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহার সভাপতিত্বে ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিকের সঞ্চালনায় কর্মশালায় বিশ্বব্যাংক টিম লিডার ক্রিষ্টোফার টি পাভলু,বিএমডিএফ ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিনুর রহমান, এলজিইডি আরএমএসইউ উপপরিচালক প্রকৌশলী আবু তালেব চৌধুরী, বিআইপি’র পরিকল্পনাবিদ আকতার মাহমুদ, আই এ বি’র স্থপতি মো. আবদুল্লাহ আল মাসুম কর্মশালার বিষয়বস্তু উপস্থাপন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: