ভিডিও কনফারেন্সে পোর্ট এক্সপো উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম বন্দরের ১৩০ বছর পূর্তিতে ”পোর্ট এক্সপো বাংলাদেশ-২০১৭” উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাছিনা ।

তিনি আজ বৃহস্পতিবর দুপুর ১২টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স’র মাধ্যমে দুইদিনব্যাপী বিশাল ও প্রথম ব্যয়বহুল এই বন্দর মেলার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন।

শুরুতেই তিনি ১৯৭১সালে মুক্তিযোদ্ধার সময় সোয়াত জাহাজ ঘেরাও আন্দোলনে নিহত ৩০(ত্রিশ)জন শ্রমিক জনতার আত্ম ত্যাগ কে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করেন এবং যারা সেই সময়ে চট্টগ্রাম বন্দরের পক্ষে হয়ে পাক-হানাদারদের প্রথম প্রতিরোধ গড়ে তুলে সাহসীকতা দেখিয়েছেন তাদের কে শ্রদ্ধার সাথে অভিনন্দন ও কৃর্তজ্ঞতা জানান।ঐদিন শ্রমিক-জনতারা যদি বীরত্ব না দেখাতে তাহলে পাক-হানাদারদের মরনাস্ত্র গুলো বাঙ্গালীদের উপর ব্যবহার হয়ে বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে স্বাধীনতার সংগামে বড় বাধাঁ হয়ে দাড়াঁতে পারতো!!

আজ সেই বন্দর সৈনিকদের ১৩০বছরের গৌরবময় যাত্রা সত্যিই দেশ কে করেছে অর্থনীতির সমৃদ্ধির দ্বার দেশ রক্ষায় যে অবদান আপনারা দেখিয়েছেন তেমনি শিল্প রক্ষায় চট্রগ্রাম বন্দরের অবদান অনন্য।তিনি নিরাপত্তা ও উন্নয়নরত চট্রগ্রাম বন্দরের আরো গতিশীল যাত্রায় সকলের সহায়তা দৃঢ় ভাবে কামনা করেন।দেশের অর্থনীতির গতি কে সচল রাখতে বন্দর নিরাপত্তা সর্বাক্রে অগ্রগণ্য বলে জানান।

৯মিনিট পরে সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,চট্রগ্রাম বন্দর বিশ্বে যে অবদান রাখছে তাই আগামী ২০২১সালে দেশ হবে উন্নয়নশীল ও অর্থনীতি চালক এবং ২০৪১সালে এই দেশ হবে দক্ষিণ- পূূর্ব এশিয়ার মধ্যে একটি সমৃদ্ধশালী ইকোমিক রাস্ট্র। তিনি চটগ্রাম বন্দর অন্যান্য বন্দর কে পিছনে ফেলে বর্তমানে ৭৩তম অবস্থান কে সাধুবাদ জানান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নৌ মন্ত্রী মোঃ শাহজাহান খান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বন্দর চেয়ারম্যান- রিয়্র এডমিয়াল এম .খালেদ ইকবাল । এসময় অনুষ্ঠানে আরো সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপূর্তমন্ত্রী ইঃ মোশারফ হোসেন, ভুমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, চট্রগ্রাম-১১এর সাংসদ এম.আব্দুল লতিফ, সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন, মহিলা সাংসদ ওয়াসিকা আয়শা খানম, চট্রগ্রাম চেম্বার সভাপতি-মাহবুবুল আলম, সিএমসিসিআই সভাপতি খলিলুর রহমান, বন্দরের সদস্য জাফর আলম, কমডোর জুলফিকার আজিজ, বন্দর ব্যবহারকারীদের পক্ষে সাইফ পাওয়ারটেকের এমডি তরাফদার রুহুল আমিন,শাহদাৎ হোসেন সেলিম,এ.কে.এম আক্তার হোসাইন,বিজিএমইর-নাছির উদ্দিন চৌধুরী,বিকেএমইরসদস্য, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিগন ।

আগত অতিথিরা বন্দরের কার সেডে দুই দিনের এই বিশাল এক্সাপোর আয়োজনে বিভিন্ন স্টলের প্রদর্শিত পণ্য এবং বন্দরের ব্যবহৃত সামগ্রী ঘুরে ঘুরে দেখেন। মেলার সমাপনীতে কাল শুক্রবার বিকেলে বানিজ্যমন্ত্রী তোফায়ের আহম্মেদ পুরস্কার বিতরনী সভাতে বক্তব্য রাখবেন বলে মেলা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক জাফর আলম জানান ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: