গরু পালনে বিনিয়োগ সোনার থেকেও বেশি লাভ!

ডেস্ক: গরু পালনে বিনিয়োগ সোনার ব্যবসার পেছনে বিনিয়োগ করা থেকেও বেশি লাভজনক। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার পশু সম্পদ উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক নুটুঠুকো সেজি বলেন, বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় গরু পালন একটি লাভজনক ব্যবসা। এখন এটা সোনার ব্যবসার চেয়েও দামি।

নুটুঠুকো সেজি অনলাইন মাধ্যমে গরুর ব্যবসা করেন। তিনি তার ব্যবসা সম্পর্কে বলেন, ‘বাজার থেকে গরু কিনে ছবি তুলে দামসহ আমাদের অনলাইন পেজে দিই। এরপর ক্রেতারা পছন্দ অনুযায়ী গরুটি কিনে নেন। গরুটি কেনার ছয় মাস বা এক বছর পর মালিক গরুটি নিয়ে যাবেন। এ জন্য আমাদের প্রতিষ্ঠানকে এ ছয় মাসের খরচ দিতে হবে। এতে আমরা যেমন লাভবান হই, তেমনি গরুর ক্রেতাও লাভবান হন। বিনিয়োগ করার সময় গরুটির ওজন ১০০ কেজি থাকলে ছয় মাস পর গরুটির ওজন হবে প্রায় ২৪০ কেজি থেকে ৩০০ কেজি।’

নুটুঠুকো সেজি

তিনি আরও বলেন, ‘গত ছয় মাসে যেভাবে গরুর মাংসের দাম বাড়ছে তাতে বিনিয়োগকারীরা অনেক বেশি লাভবান হয়েছেন।’

ব্যবসায়ীরা গর্ভবতী গাভী কিনতে বেশি আগ্রহী। কারণ, এখানে লালন পালনের ফলে ক্রেতা একটি ফ্রি বাছুর পাবেন। যা তার বিনিয়োগের বোনাস।

সেজি বলেন, ‘আমাদের ৩৪০ মিলিয়ন বিনিয়োগকারী রয়েছে। একটি গরুর জন্য খরচ হিসেবে আমরা প্রতি মাসে ২৩ মার্কিন ডলার নিই। আর একটি গর্ভবতী গাভীর দাম এক হাজার মার্কিন ডলার। দক্ষিণ আফ্রিকায় গত মাসে মাংসের দাম ২২ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৭ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী আমরা এখন দক্ষিণ আফ্রিকার শীর্ষ চল্লিশটি বড় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অন্যতম। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতিটি উৎসবে ক্রমবর্ধমান মাংসের চাহিদা এ বিনিয়োগকে আরও জনপ্রিয় করছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: