আইফোন নেই বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ ধনীর!

ডেস্ক: বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি যিনি, তাঁর কিনা একটা আইফোন নেই! এটা ভাবা যায়! নিজের কিডনি বিক্রি করেও আইফোন কেনার খবর গণমাধ্যমে বেরিয়েছে। আর প্রায় ৭ হাজার ৮৭০ কোটি মার্কিন ডলার থাকা সত্ত্বেও বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ওয়ারেন বাফেট আইফোন ব্যবহার করেন না। খটকা লাগলেও ঘটনা সত্য।

আজ শনিবার দ্য ইকোনমিক টাইমস-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ের চেয়ারম্যান ওয়ারেন বাফেট বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী হলেও তিনি সাধারণ জীবন যাপন করেন। তিনি কোনো আইফোন ব্যবহার করেন না।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাপল কোম্পানির একজন শেয়ারহোল্ডার ওয়ারেন বাফেট। তারপরও তিনি আইফোন ব্যবহার করেন না। এমনকি কোনো স্মার্টফোনও নেই তাঁর। এখনো তিনি পুরোনো দিনের একটি নকিয়া ফ্লিপ মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন।

২০১৩ সালে সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের নকিয়া ফোনটি দেখিয়ে গর্ব করে বাফেট বলেছিলেন, ‘যে জিনিসটি আমি ২০ বা ২৫ বছর ধরে ব্যবহার করছি, তা আমি কোনোভাবেই ছুড়ে ফেলে দিতে পারি না। আর এই ফোনটি আমাকে আলেকজান্ডার গ্রাহাম বেল উপহার দিয়েছেন।’ আর এ কারণেই এখনো আইফোন ব্যবহার করেন না তিনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাফেট নিয়মিত ই–মেইল ব্যবহার করেন না। এ নিয়ে বেশ আগে অনেকেই আলোচনা করেছিলেন। অনেকে বলেছিলেন, নতুন প্রযুক্তিতে তাঁর ভয় আছে। এ কারণে একবারই একটি ই–মেইল করেছিলেন বাফেট। তবে বাফেটের নতুন প্রযুক্তিতে কোনো ভয় নেই। বরং তিনি অনেক হিসাবি একজন মানুষ। যিনি নিজের জীবন নিজের ইচ্ছেমতোই এগিয়ে নিয়ে যেতে চান।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ধনীদের তালিকায় নাম ওঠার আগে বাফেটের জীবনযাত্রা যেমন ছিল, এখনো তেমনই আছে। যুক্তরাষ্ট্রের ওমাহাতে ১৯৫৮ সালে ৩১ হাজার ৫০০ ডলার দিয়ে তিনি একটি ছোট তিন রুমের বাসা কিনেছিলেন। এখন এত যে অর্থের মালিক হয়েছেন, তারপরও ওই বাড়িতেই থাকেন তিনি। ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি আট বছরের পুরোনো মডেলের একটি ক্যাডিলাক গাড়ি চালাতেন। জেনারেল মোটরসের প্রধান নির্বাহী গাড়িটি বদল করে বাফেটকে একটি নতুন গাড়ি দেওয়ার প্রস্তাব করেছিলেন।

এক সাক্ষাৎকারে সে সময় বাফেট বলেছিলেন, ‘বছরে আমি মাত্র সাড়ে তিন হাজার মাইল গাড়ি চালাই। তাই চাইলেই আমি একটি নতুন গাড়ি নিতে পারি না।’ পরে অবশ্য গাড়িটি বদল করে একটি নতুন গাড়ি নিয়েছিলেন বাফেট। এ ছাড়া তাঁর ব্যক্তিগত একটি জেটবিমান আছে। জরুরি মুহূর্তে কোনো মিটিংয়ে যোগ দিতেই কেবল তিনি ওই জেট বিমানটি ব্যবহার করেন।

সাদাসিধে জীবন যাপন করা এই ব্যক্তি তরুণদের উদ্দেশ করে বলেছেন, ক্রেডিট কার্ড থেকে দূরে থাকুন। নিজের জন্য বিনিয়োগ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: