পটিয়ায় সুন্নী-পুলিশ সংঘর্ষ : পুলিশসহ আহত-২৫, আটক-৬

সনজয় সেন, পটিয়া সংবাদদাতা : একই স্থানে কওমী ও সুন্নীপন্থীদের মাহফিলের আয়োজনকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের পটিয়ায় সুন্নী ও পুলিশের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে পটিয়া কালারপোল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী, পটিয়া থানার এসআই মো. আরাফাত, খাজু মিয়া, জাহের উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম, আনসার মো. শাহজাহান, মো. আজাদ, মাহবুব, রায়হান, আব্বাস, জনি, রনি, সাগরসহ অন্তত আহত হয়েছেন ২৫ জন। আহতদের মধ্যে পুলিশ সদস্যরা পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন। এই ঘটনায় শাখাওয়াত হোসেন, মিজানুর রহমান, শাহ আলম, এয়াকুব, শাহীন, ফারুককে পুলিশ আটক করেছেন। ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও গাড়ী ভাংচুর নিয়ন্ত্রন করতে পুলিশ ১০-১২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়েছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহা সড়কের পটিয়া শান্তিরহাট এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর তিনটায় উপজেলার কুসুমপুরা ইউনিয়নের শান্তিরহাটের মাছ বাজার এলাকায় বাংলাদেশ মুজাহিদ কমিটির ব্যানারে কওমীপন্থীরা মাহফিলের আয়োজন করে। একই স্থানে ইমাম আজম (রাঃ) সুন্নী কনফারেন্সের উদ্যোগে সুন্নীরা মাহফিল করার ঘোষনা দেয়। এতে সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিলে পুলিশ সুন্নীপন্থীদের পরের দিন মাহফিল করার পরামর্শ দেন। কিন্তু সুন্নীপন্থীরা প্রশাসনের অনুরোধ উপেক্ষা করে মঙ্গলবার বিকেলে কওমীপন্থীদের মাহফিলের প্যান্ডল ছিড়ে এবং মঞ্চ ভাংচুর করে। এসময় পুলিশের সঙ্গে সুন্নীদের সংঘর্ষ বাধে। এতে সুন্নীরা লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে গাড়ী ভাংচুর ও দোকান ভাংচুর করে। ফলে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহা সড়ক সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ঘন্টা বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

ইমাম আজম (রাঃ) সুন্নী কনফারেন্সের আহবায়ক মোহাম্মদ শহীদ ইসলাম বলেন, তাদের মাহফিলের প্যান্ডল কওমীপন্থীরা সোমবার ভেঙে দিয়েছে। এর প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকেলে প্রতিবাদ সভা করলে পুলিশ অহেতুকভাবে তাদের উপর হামলা চালায়।

পটিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোঃ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, কওমী ও সুন্নীপন্থীরা একই জায়গায় মাহফিলের আয়োজন করায় সংঘর্ষের আশংকায় সুন্নীপন্থীদের মাহফিল একদিন পিছিয়ে নিতে বলা হয়েছে। কিন্তু তারা একগুয়েমি করে কওমীপন্থীদের প্যান্ডেল ও মঞ্চ ভাংচুর করতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সুন্নীদের সংঘর্ষ হয়। দোকান ও গাড়ী ভাংচুর বন্ধ করতে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেছে। বর্তমানে মহা সড়কে গাড়ী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। এই ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য পটিয়ায় প্রায় সময়ই বিভিন্ন এলাকায় ওহাবী-সুন্নীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে থাকে। গত কিছুদিন আগেও এমন একটি পরিস্থিতিতে উপজেলার ধলঘাট এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়েছিলো প্রশাসনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: