রোহিঙ্গা প্রশ্নে মিয়ানমারকে সরকারের বার্তা দিন: রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক:  রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেওয়ার পথ খুঁজে বের করতে বাংলাদেশের বার্তা মিয়ানমার সরকারের কাছে পৌঁছে দিতে দেশটির বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মিয়ো মিন্ত থানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন রাষ্ট্রদূত। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা সমাধানে আমাদের একত্রে একটি পন্থা খুঁজে বের করতে হবে। প্রতিবেশী হিসেবে আমরা সব সময় আলোচনার মাধ্যমে সমস্যাটির সমাধান করতে চাই।’

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, শরণার্থীরা বাংলাদেশে সামাজিক ও পরিবেশগত চাপ সৃষ্টি করছে বাংলাদেশের এ অবস্থানের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশে বহু অনথিভুক্ত রোহিঙ্গা শরণার্থী বাস করছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গারা খুবই মানবেতর অবস্থার মধ্যে বসবাস করছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিদ্রোহীদের সঙ্গে শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে আলোকপাত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ চুক্তির আওতায় বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণভাবে ভারত থেকে শরণার্থীদের ফেরত এনেছে।

প্রেস সচিব বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী প্রতিবেশী হিসেবে মিয়ানমারের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরো বৃদ্ধি করতে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যমান সম্পর্ক জোরদারের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি দুই দেশের যৌথ বাণিজ্য কমিশন ও নৌপরিবহন কার্যক্রম সক্রিয় করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

সাক্ষাৎকালে বিদায়ী রাষ্ট্রদূত বলেন, তার সরকার রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে আন্তরিক এবং এ ক্ষেত্রে কফি আনান কমিশনের কিছু সুপারিশ বাস্তবায়নে একমত। তবে এর কিছু সুপারিশ বাস্তবায়ন করা দুরূহ। অবশ্য মিয়ানমার সরকার সমস্যাটির সমাধানে পৌঁছাতে আন্তরিক।

প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারের নেতা অং সান সু চিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: