আমেনাকে নির্যাতনের অভিযোগে গৃহকর্ত্রী গ্রেপ্তার

ডেস্ক: শিশু গৃহপরিচারিকা আমেনা আক্তারকে নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর নির্যাতনকারী গৃহকর্ত্রী আফরোজা বেগমকে (৫৫) ফেনী থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নের বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ফেনীর পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম জাহাঙ্গির আলম সরকার জানান, রোববার রাতে নির্যাতিত শিশু আমেনা আক্তারের ফুফু ফুল জাহান বেগম টুনি বাদি হয়ে আফরোজাকে আসামি করে ফেনী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে।

রোববার রাত থেকে পুলিশের একাধিক টিম আফরোজা বেগমকে গ্রেপ্তার করতে ফেনীর জেলার বিভিন্ন স্থানে ও ঢাকায় তার মেয়ে লাভলীর বাসায় অভিযান চালায়। ঢাকায় আফরোজার মেয়ে লাভলীর তথ্য অনুযায়ী পুলিশ ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নে অভিযান চালায়। মঙ্গলবার ভোরে আফরোজা বেগম ধলিয়া বাজার হয়ে অনত্র পালিয়ে যচ্ছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ আরো জানায়, গত বছরের মাঝমাঝিতে শিশু আমেনা আক্তারের ফুফু ফুল জাহান বেগম টুনি অভিভাবকহীন তার ভাতিজি আমেনাকে কাজ করার জন্য ফেনী শহরের একাডেমির এলাকার নুরিয়া মসজিদের পেছনে আফরোজা ম্যানসনে দিয়েছিলো। এর কিছুদিন পর গৃহকর্ত্রী আফরোজা ঢাকায় তার মেয়ে লাভলীর বাসায় শিশু আমেনাকে পাঠিয়ে দেয়। ওই বাসার শিশু আমেনার উপর গৃহকর্ত্রী লাভলী নির্মম নির্যাতন চালায়। অমানুষিক কাজ ও শারীরিক নির্যাতনের এক পর্যায়ে শিশুটির শরীরের পিছনের অংশে চুলার আগুন দিয়ে ঝলসে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে অসুস্থ্য আমেনাকে গৃহকর্তী লাভলী তার মা আফরোজার ফেনী বাসায় পাঠিয়ে দেয়। কিছুদিন ওই বাসায় থাকার পর আফরোজা শিশু আমেনাকে রাতের অন্ধকারে ঘর থেকে বের করে দেয়। নির্যাতিত ওই শিশুর বীভৎস্য কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

ফেনী জেলা সদর হাসাপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) অসীম কুমার সাহা জানান, ১০ বছরের দগ্ধ শিশু আমেনা রোববার দুপুর থেকে ফেনী জেলা সদর হাসপতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গৃহকর্তীর নিষ্ঠুর নির্যাতনে ঝলসে গেছে শিশুটির পিঠ থেকে নিম্নাঙ্গ। আগুনে শরীরের চামড়া পুড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ক্ষত স্থানে পঁচন ধরেছে। হাসপাতাল থেকে সব ধরনের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: