রাতে লন্ডনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন খালেদা জিয়া

ডেস্ক: লন্ডনের উদ্দেশে আজ শনিবার রাতে ঢাকা ছাড়ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। পা ও চোখের চিকিৎসার উদ্দেশ্যে তিনি সেখানে যাচ্ছেন বলে জানান দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যা ৭টায় এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি নিয়মিত ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল (রা.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা হবেন।

তার সফরসঙ্গী হিসেবে যাচ্ছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আওয়াল, চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এবিএম আবদুস সাত্তার ও গৃহকর্মী ফাতেমা বেগম। তাকে বিদায় জানাতে বিএনপির সিনিয়র নেতাসহ বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী বিমানবন্দর এলাকায় উপস্থিত থাকবেন। এ তথ্য জানান চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার।

এর আগে ২০১৫ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়া লন্ডন যান। সেবার ছেলে তারেক রহমান ও তার স্ত্রী-সন্তান এবং প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী ও দুই সন্তানের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করে দেশে ফেরেন।

বিএনপি নেতারা বলছেন, দেশে ফিরেই খালেদা জিয়া নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের রূপরেখা ও আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করবেন। জানা গেছে, লন্ডন সফরকালে খালেদা জিয়া উল্লিখিত বিষয়সহ দলের নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে ছেলে ও দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে আলোচনা করবেন। খালেদা জিয়ার ফেরার বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এটা নির্ভর করবে তার চিকিৎসার ওপর। চেয়ারপারসনের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঈদুল আজহা উদযাপন করেই তিনি দেশে ফিরবেন। দলের নেতারাও তাকে পরিবারের সঙ্গে ঈদ করার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে ঈদের আগেই তিনি দেশে ফিরতে পারেন বলেও একটি সূত্র জানায়।

এদিকে বিএনপির একটি সূত্র জানায়, চেয়ারপারসনের লন্ডন সফরকে কেন্দ্র করে বেশ আগে থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারেক রহমান। বর্তমানে ছোটভাই প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর পরিবারও তার সঙ্গে থাকেন। তার বাসা প্রয়োজনের তুলনায় ছোট হওয়ায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একসঙ্গে থাকতে সাময়িকভাবে একটি বাসাও ভাড়া করেছেন। সেখানেই থাকবেন খালেদা জিয়া। জানা গেছে, খালেদা জিয়ার লন্ডন সফরকে কেন্দ্র করে বিএনপির ঢাকাসহ ইউরোপ ও আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশের নেতারা লন্ডনে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। এ বিষয়টি বৃহস্পতিবার রাতে অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকেও কথা প্রসঙ্গে আলোচনা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: