প্রকৌশলীদের মেয়র- প্রকল্প কাজের ডিপিপি তৈরিতে এত দেরি হবে কেন?

প্রতিবেদক: প্রকৌশল বিভাগের ১৬তম মাসিক সমন্বয় সভায় সিটি মেয়র আগামী ১৫ দিনের মধ্যে নগরীর সকল সড়কে সৃষ্ট গর্ত,খন্দক সংস্কার করার জন্য বিভাগীয় প্রকৌশলীদেরকে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন। এসময় তিনি বলেন, আগামী ১৫ দিনের মধ্যে চলমান সকল সড়কে সৃষ্ট গর্ত,খানাখন্দকের চলমান সংস্কার কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। সংস্কার প্রকল্পের জন্য দ্রুত টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে বাস্তবায়ন শুরু করতে হবে।

সভায় সিটি মেয়র প্রকল্প কাজের ডিপিপি তৈরি করার ক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীদের দীর্ঘসূত্রিতায় চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেন। সিটি মেয়র বলেন, প্রকল্প কাজের ডিপিপি তৈরিতে এত দেরি হবে কেন? তিনি এসময় প্রধান প্রকৌশলীকে প্রকল্পের জন্য প্রশাসনিক অনুমোদন নিয়ে ডিপিপি তৈরিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীদেরকে সময় বেঁধে দেয়ার নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি বলেন, মন্ত্রণালয়ে প্রকল্প অনুমোদনে কোন দীর্ঘসূত্রিতা হচ্ছে না। কিন্তু আমাদের প্রকল্প পাঠাতে দেরি হচ্ছে।

আজ সকালে চসিক কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় সিটি মেয়র একথা বলেন।

সভায় তিনি আরো বলেন, প্রকৌশলীদের দায়িত্ব পালনের উপরই নগরের সিংহভাগ উন্নয়ন ও সিটি কর্পোরেশনের ভাবমূর্তি নির্ভরশীল। কর্পোরেশনের লোকবল,লজিস্টিক সাপোর্ট কি পরিমাণ রয়েছে তা নগরবাসীর বিবেচ্য বিষয় নয়। নগরবাসীরা চায় কাজ। এটিই আমাদের চ্যালেঞ্জ। রাস্তায় ধুলাবালি দুর্ভোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সেবাসংস্থা ওয়াসার পাইপ লাইন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি হচ্ছে। একারণে রাস্তায় নতুন করে ধুলাবালি দুর্ভোগে নগরবাসী কষ্ট পাচ্ছে।তিনি প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাকে এ বিষয়টি দ্রুত সমাধানের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে.কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান নির্বাহি সামসুদ্দোহা, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম,মো.মাহফুজুল হক,আনোয়ার হোছাইন,মনিরুল হুদাসহ সিভিল,যান্ত্রিক,বিদ্যুৎ শাখার দায়িত্বরত নির্বাহি,সহকারি,উপসহকারি প্রকৌশলীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: