কয়েক ঘন্টার বৃষ্টিতে পানিতে ভাসছে সীতাকুন্ডবাসী

কাইয়ুম চৌধুরী, সীতাকুন্ড সংবাদদাতা: কয়েক ঘন্টার বৃষ্টিতে হাটু থেকে কোমড় সমান পানিতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সীতাকুন্ড পৌরবাসী। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে শুরু হয়ে রাতভর থেমে থেমে বৃষ্টি হয় সীতাকুন্ডে। এতে সীতাকুন্ড পৌরসভা সহ বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়ছে। এরই মধ্যে সীতাকুন্ড পৌরসভাধীন বেশ কিছু এলাকার বসতঘরেও পানি ঢুকে পড়েছে। এছাড়াও সৈয়দপুর, বাড়বকুন্ড, বাঁশবাড়ীয়া, মুরাদপুর ইউনিয়নসহ বেশ কিছু এলাকায় পানিতে প্লাবিত।

জানা যায়, সীতাকুন্ড পৌরসভার পেশকার পাড়া, নামার বাজার, দক্ষিন ইদিলপুর, যুবাইদিয়া মাদ্রাসা সড়ক, আমিরাবাদ থেকে নামার বাজার পুরো সড়ক, সোবহানবাগ, গোড়ায়োন রোড, বাড়বকুন্ড ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড, মুরাদপুর ইউনিয়নের কিছু এলাকা, সৈয়দপুর ইউনিয়নের অন্তরখালী ও বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়নের উপকুলীয় এলাকা কয়েক ঘন্টার বৃষ্টিতে প্লাবিত হয়েছে। এছাড়া সীতাকুন্ড পৌরসভার দক্ষিন ইদিলপুরসহ বেশ কিছু এলাকায় বসত ঘরে পানি ঢুকে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে ওইসব এলাকার বাসিন্দারা। অনেকে ক্ষোভ ও আশংকা জানিয়ে বলেন, সামান্য বৃষ্টিতে এই অবস্থা, বৃষ্টি যদি এভাবে হতে থাকে তাহলে আমাদের বাড়ি ছাড়তে হবে। আমরা এই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসার জন্য স্থানীয় জন প্রতিনিধিসহ সকলকে এগিয়ে আসার আহ্ববান জানান।

পেশকার পাড়ার বাসিন্দা মোঃ মুন্না বলেন, আমাদের এলাকার অবস্থা করুন। অন্যান্য বারের চেয়ে পেশকারপাড়াসহ আশপাশের অনেক এলাকারই একই অবস্থা। হাটু থেকে কোমর সমান পানি হওয়ায় শিক্ষার্থীরা স্কুল কলেজে যেতেও পারছেনা। সে অভিযোগ করে বলেন, সাধারন মানুষের অসচেতনতার কারনে কিছুটা হলেও এই অবস্থার জন্য দায়ী। যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলে, যত্রতত্র ঘর বাড়ি নির্মান করে পানি চলাচলের ড্রেন নষ্ট করে ফেলা। তাছাড়া আমাদের এলাকার খাল গুলোও সংস্কারের প্রয়োজন আছে। পাশাপাশি সাধারন জনগনকেও সচেতন হতে হবে।

দক্ষিণ ইদিলপুরের বাসিন্দা মোঃ শিহাব জানান, রাতেই আমাদের ঘরে পানি ঢুকে গেছে। অনেক কষ্টের মধ্যে আছি। জলাবদ্ধতা অনেক পুরানো একটা সমস্যা হলেও এর স্থায়ী কোন সমাধান দেখছিনা। জনপ্রতিনিধিদের এগিয়ে আসার আহ্ববান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: