অভিযোগ নিয়ে বিসিবিতে ক্রিকেটার শহীদের স্ত্রী

স্পোর্টস ডেস্ক: জাতীয় দলের পেসার মোহাম্মদ শহীদের স্ত্রী ফারজানা আক্তার অভিযোগ করছেন, তাকে তালাক দেয়ার চেষ্টা চলছে। তবে সন্তানদের কথা ভেবে তিনি যে কোনো মূল্যে স্বামীর সংসারেই থাকতে চান বলে জানিয়েছেন।

এছাড়াও শহীদের বিরুদ্ধে তাকে মারধর ও বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ এনেছেন তিনি। এসব অভিযোগ নিয়ে বিসিসির দুয়ারে হাজির হলেন পেসার মোহাম্মদ শহীদের স্ত্রী ফারজানা আক্তার। দুই ছোট সন্তানকে নিয়ে এসে বিসিবি সভাপতি বরাবর তিনি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন মিরপুরে বিসিবির কার্যালয়ে।

এরপর সাংবাদিকদের ফারজানা বলেছেন, ‌‘বিসিবিকে জানানো হয়েছে। বিসিবি সভাপতি বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। ওরা ওর বাবাকে (শহীদ) ডেকে সব সমস্যার সমাধান করে দেবে বলেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমি আমার অভিযোগগুলো লিখিত দিয়েছি। যেটা হয়েছে, তার সব ওনাদের (বিসিবি) কাছে জানানো হয়েছে। ওনারা বলেছেন, সমস্যার সমাধান করে দেবেন। যদি সমাধান না হয়, বিচার না হয়, আমি বলব। ওনারা আশ্বাস দিয়েছেন দ্রুত সমাধান হয়ে যাবে।’

তার অভিযোগ, সে (শহীদ) সবসময় চেয়েছে দ্বিতীয় সন্তান নষ্ট করে ফেলতে। এজন্য ও আমার পেটে লাথিও মেরেছে। কিন্তু আমি নষ্ট করিনি। আমাদের মেয়ের জন্ম হয় রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে। হাসপাতালে মোট এক লাখ দশ হাজার টাকা লেগেছিল। কিন্তু ও এক টাকাও দেয়নি। কোনও খোঁজখবরও নেইনি। আমি আমার নিজের স্বর্ণ বন্ধক রেখে টাকা পরিশোধ করেছিলাম।

তার দাবি, শহীদ মূলত টাকা পয়সা দিয়ে আমাকে ডিভোর্স দিতে চাচ্ছে। কিন্তু আমি তো এটা চাই না। আমি বাচ্চাদের মুখের দিকে তাকিয়ে সংসার করতে চাই। আমি হয়তো বাচ্চাদের অন্যান্য সবকিছু দিতে পারব। কিন্তু বাবার ভালোবাসা তো আর দিতে পারব না।

ডানহাতি মিডিয়াম ফাস্ট বোলার শহীদ ২০১৫ সালের এপ্রিলে খুলনায় পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখেন। এখন পর্যন্ত তিনি পাঁচটি টেস্ট ও একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। টেস্টে পাঁচটি ও টি-টোয়েন্টিতে একটি উইকেট পেয়েছেন। তবে ওয়ানডে ক্রিকেটে এখনও দলে জায়গা হয়নি তার।

সর্বশেষ গত নভেম্বরে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেন শহীদ। ইনজুরিতে পড়ায় এরপর আর তার মাঠে ফেরা হয়নি। ছয় বছরের দাম্পত্য জীবনে এক ছেলে এবং এক মেয়ের জনক শহীদ। এর মধ্যে ছেলের বয়স তিন এবং মেয়ের বয়স এক বছরের কিছু কম।

২০১১ সালের ২৪ জুন মুন্সীগঞ্জের মেয়ে ফারজানা আক্তারের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় নারায়ণগঞ্জের ছেলে ক্রিকেটার মোহাম্মদ শহীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: